আজ বহুদিন আকাশ দেখিনা

আজ বহুদিন আকাশ দেখিনা।
শুনেছি মানুষ জীবনশূন্য হলে
ভাগ্য গ্রহ হয়ে আকাশে ভাসে!
সেই থেকে আর আকাশ দেখিনা
যদি অভিমানী ভাগ্য গ্রহটি আমায় দেখে
শুকতারার মত খসে পড়ে।
 
ঘন সিয়া রাত্রি ইশারা ডাকে,
আমি মুখ লুকিয়ে পাশ কেটে যাই।
স্মৃতির পাতার ভাঁজে ভাঁজে
তোমার মুখটি খুঁজে ফিরি
তবু আকাশ ছুঁয়ে দেখিনা;
যদি আবার হারিয়ে ফেলি তোমায়।
 
অভিমানী তুমি,
অভিমানী আমিও।
অশ্রু পিষ্ট আজ অশ্বথ তলে
ভাগ্য গ্রহদের আনাগোনা এলো চুলে
আঁধারে মিলায় দলে দলে;
অভিমানী ভাগ্য গ্রহটি তবু জলে।
আজ বহুদিন আকাশ দেখিনা
যদি অভিমানী তুমি যাও আবারো চলে।
 
ভয় হয়,
আবারো তোমায় হারানোর।
নভোমণ্ডল আর দেখা হবেনা
তবু ভাগ্য গ্রহ খসে পড়ে,
একাকী মন খারাপের রাতে
কখনো বা হৃদয় অম্বর থেকে,
বিশ্বাসের ঘর ছেড়ে অবিশ্বাসের
প্রাঙ্গণে;
সম্পর্কের দেয়াল ছিন্ন করে
কোন এক নিঃসঙ্গ ঘরের কোণে।
 
মন জানে,
তুমি আছো ওই ঘন সিয়া অম্বরে।
আর কখনো নভোমণ্ডল দেখা হবেনা
নিঃসঙ্গতার এক বিশাল নভোমণ্ডল
লালন করে চলেছি হৃদপিণ্ডে!
সেই নভোমণ্ডলে আমার পদচারণা,
একলা রাতে।