হারিয়ে যাওয়া মানুষ

হুমায়ুন স্যার বলেছিলেন, “হারিয়ে যাওয়া মানুষ ফিরে এলেও আর আগের মত থাকেনা! খালি মনে হয়, কি যেন নেই কি যেন নেই”! এমন নিঁখুত অনুভুতির ব্যাখ্যা বোধকরি আর কেউ দিতে পারেনি!

মানুষগুলো ফিরে আসে, কিন্তু কোথায় জানি কিছু একটার শূন্যতা রয়েই যায়। জীবনের সুর কেটে যায়, জোড়া দেয়া সুরে হঠাৎ হঠাৎ তাল হারিয়ে যায়! মনের দুয়ারে অনবরত কষ্ট এসে টোকা দেয়! একি শুধুই কষ্ট? নাকি চাপা অভিমান?
কষ্ট গুলো কোন না কোন সময় উপচে পরবেই। অভিমানটুকু গোপনেই রয়ে যায়। উগ্র গর্জন নয়, স্যাতস্যাতে ভিজা মাটির মতই থেঁতলে থাকে। বাতাস পেলেই ক্ষনে ক্ষনে আঁশটে গন্ধ ছড়ায়।


সম্পর্ক যে ভাঙ্গে গড়ে, সে কি বোঝে, ভাঙ্গা গড়ার খেলার ফাঁকে মন ও ভেঙ্গে যায়?
মানুষ বড় বিচিত্র! কাছে গেলেই সহজলভ্য হয়ে উঠে ভালবাসা! পুরোটা জেনে নিলেই ভালবাসার গায়ে ছত্রাক জমতে শুরু করে। এ কেমন সম্পর্কের বৈচিত্রতা!


মানুষগুলো ফিরে আসে! আবারো তাদের মানিয়ে নেয়া হয়! সবকিছু আগের মতই চলে, শুধু ভিতরে একটা ফাঁকা রাস্তা তৈরী হয়ে যায়। সে রাস্তায় কেবল ধূ ধূ মরুশূন্যতা!


যে ভাঙ্গে গড়ে, সে কি জানে, কতটা চাপা অভিমানে ভালবাসার দেয়ালে শ্যাওলা জমে?