মৃন্ময় ৪৯

নৈঃশব্দের বালুচরে পুড়া মাটি বুকে
খরতাপে দগ্ধ কৃষকের লোচন ভরা বৃষ্টির প্রত্যাশার মত
দুঃসহ অভিমানে বিরহ অনুরাগে
তবু প্রেম জাগে মনে।

বিপুল বিস্ময়ে পৃথিবীর দিগন্ত রেখায় অলিন্দ্য কষ্টনীলা
হৃদয়ের সীমান্ত জুড়ে অনাদি কালের দহন
শিবঅশ্রু হয়ে দুষ্প্রাপ্য রুদ্রাক্ষের মত
ভালবাসা হয়ে তুমি গড়িয়ে পরো জমিনে
ভুলে ভুলে দুই যুগ গেলো; ভুলে ভুলে শত রাত এলো
তবু প্রেম জাগে মনে।

প্রেম জাগে শিরায় শিরায় জমাট বাঁধা রক্তের মত
বিষাক্ত জীবানু হয়ে
এফোঁড় ওফোঁড় করে বিঁধে যায় হৃদয় দেয়ালে।
সময় অসময়ে বরফ গলা নদীর মত বয়ে যায় সংশয়
হেলায় হেলায় বেলা ঢলে; ভুলে ভুলে কেটে যায় প্রহর
তবু প্রেম জাগে মনে।

অনাধিকারে আহ্লাদী শ্বাস টেনে
শেকড় থেকে আমি উপড়ে তুলি তাচ্ছিল্য
নিমগ্ন ধ্যানে কারাবাস ভুলে দেখি
বৃষ্টির মত ফোঁটা ফোঁটা চুইয়ে পরছে প্রেম!
অতঃপর উড়ে যায় কুয়াশা
জেগে উঠে সমুদ্রের সুর
মিহিন করুণ সানাই, কোথায় যেন কি ভাঙ্গে-চুরে
তবু অনন্ত রাত্রিকে বুকে ধরে
আবারো প্রেম জাগে মনে।

প্রেম নয়; তবু প্রেমেরই মত
সবুজের ভিতর সাদা হলদে কলির মত
শিশিরের মত, হয়তো কিশোরীর নরম ছোঁয়ার মত
কামুকিনী উচ্ছল শাণিত নদীর মত
পৃথিবীর অপরূপ অগ্নিশিল্প; সময়ের প্রনয়ের মত
তবু প্রেম জাগে মনে।
মৃন্ময়,
রাত্রির নক্ষত্রালোকিত রুপের মত
পাখীর পিপাসার মত
চির সত্য শিল্প সাধনার মত
অনাকাঙ্ক্ষিত জানি,
তবু প্রেম জাগে মনে।